ইউজার লগইন

বন্ধ হবে কি অসহায় মানুষের মৃত্যুর এ মিছিল।

বন্ধ হবে কি অসহায় মানুষের মৃত্যুর এ মিছিল।

হায় প্রভু তুমি আমাদের কত অসহায় করে সৃষ্টি করেছ। কত মায়ের আহাজারি, বাবাগো একটু বাচাও, কিশোরী বোন সাড়া পৃথিবীর ভাইদের ডেকে ডেকে বলছে আমাকে বাচাও ভাইয়া, আমি বাঁচতে চাই। পাঁচ ছয় ইঞ্চি দূরে বোনটিকে সাড়া পৃথিবীর ভাইয়েরা আপ্রাণ চেষ্টা করছে বাঁচাতে। আজ যে সে অবহেলিত বলতে গেলে ঘৃনিত ১৫০০ টাকা মাসিক বেতনের গার্মেন্টস শ্রমিক নন। আজ সে মানুষ, সাড়া পৃথিবীর সকল ভাইদের বোন। একজন ভাই হাত নেড়ে নেড়ে বলছে ভাই আর কত সময় লাগবে আমাকে বের করতে। ভাইদের মুখে জবাব নেই। কি জবাব দিবে তারা নিজেরাই যে জানেনা কখন পারবে তাকে তার পরিচিত আলো ঝলমলে নির্মল বাতাসে ফিরিয় আনতে নাকি আর ফিরে আসা হবে না তার পরিচিত ভালবাসার পৃথিবীতে অথবা তার প্রানপ্রিয় আপনজনের কাছে।
ঘুমের ঘুরে বার বার আতকে উঠেছি, আমার ভাইটি ঊপুর হয়ে পরে আছে। তার পিঠ বরাবর ৭-৮টি কংক্রিটের ছাদ ও বিম পড়ে আছে। সে অনেক আগেই সকল বাঁধা ছিন্ন করে শান্তির দেশে চলে গেছে। সেখানে কেঊ তাকে রক্ত চক্ষু দেখিয়ে বলবে না, কাল কাজে না আসলে বেতন দিব না। আজ যে তার কোন বেতনের প্রয়োজন নেই। কিন্তু তার পিঠ থেকে মাথা পর্যন্ত দেহটি আমাদের ব্যঙ্গ করে বলছে। আমি তোমাদের এত কাছে কিন্তু আমাকে ছুবার সাধ্য তোমাদের নেই। তোমরা এ পর্যন্ত একটি প্রয়োজনীয় ক্ষমতা সম্পন্ন ক্রেন এনে আমার শরীরটা বের করতে পারলে না। আমার কোন কষ্ট না হলেও আমি জানি তোমাদের অনেক কষ্ট হচ্ছে। আজ সকাল পর্যন্ত আমরা তার সুন্দর সার্ট ও পেন্ট পড়া দেহটি ঊদ্ধার করতে পারিনি। সত্যি ভাই তুমি আমাদের অপারগতার জন্য ক্ষমা কর, আমরা অনেক কষ্ট পাচ্ছি।
কিন্তু এ কষ্ট দুদিনেই মুছে যাবে, ঊদ্ধার অভিযান শেষ হবে, তদন্ত কমিটি হবে,শেরাটন সোনার বাংলা, রিজন্সি বা অন্য কোন তারকা খচিত হোটেলে সেমিনার হবে,
“সাভারে রানা ভবন ধবসে পড়ার কারন নির্ণয় ও পরবর্তী করনীয় নির্ণয়”
তদন্তে সব বেরিয় আসবে। কারণ ও করনীয়ও নির্ণয় হবে। কিন্তু বন্ধ হবে কি অসহায় মানুষের মৃত্যুর এ মিছিল।

২৫/০৪/২০১৩ইং

পোস্টটি ৪ জন ব্লগার পছন্দ করেছেন

উচ্ছল's picture


ভাই তুমি আমাদের অপারগতার জন্য ক্ষমা কর, আমরা অনেক কষ্ট পাচ্ছি।

নিভৃত স্বপ্নচারী's picture


এ মৃত্যুর মিছিল শেষ হবে না, যতক্ষণ পর্যন্ত লোভী মানুষগুলোর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না হবে।

আহসান হাবীব's picture


একমত।
হবে, ঐ দেখুন জেগে উঠেছে তরণ প্রজন্ম।
যারা ঘুম থেকে ঊঠে না সকাল দশটার পর।
যারা নির্ঘম রাত জেগে মা মাটিকে আগলে রাখে।
যারা জানতে পেরেছে তাদের বাংলাদেশ নামক দেশটি
উপহার পাবার পিছনে কত রক্ত ইজ্জত দিতে হয়েছে।
তারাই অনতি দূরে ছুড়ে ফেলে দেবে সকল অন্যায়
ঐ বুড়িগঙ্গায়।
নিষ্কলুষ মাকে হতে দেবে না কলুষিত।
আর এরিই মাঝে বন্ধ হবে অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যুর এ মিছিল।

এ টি এম কাদের's picture


রাহু-কেতুর মৃত্যু না হওয়া পর্যন্ত কোন সম্ভাবনা নাই । ওনাদের এবং ওনাদের পুষ্যদের সর্বগ্রাসী ক্ষুধার যোগান দিতে মৃত্যুর মিছিল চালু থাকবে যতদিননা ধুমকেতুর আগমনে রাহু-কেতুর বিনাশ হয় ।

আহসান হাবীব's picture


আপনারাই তো এ প্রজন্মের ধুমকেতু।

তানবীরা's picture


এ মৃত্যুর মিছিল শেষ হবে না, যতক্ষণ পর্যন্ত লোভী মানুষগুলোর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না হবে।

মন্তব্য করুন

(আপনার প্রদান কৃত তথ্য কখনোই প্রকাশ করা হবেনা অথবা অন্য কোন মাধ্যমে শেয়ার করা হবেনা।)
ইমোটিকন
:):D:bigsmile:;):p:O:|:(:~:((8):steve:J):glasses::party::love:
  • Web page addresses and e-mail addresses turn into links automatically.
  • Allowed HTML tags: <a> <em> <strong> <cite> <code> <ul> <ol> <li> <dl> <dt> <dd> <img> <b> <u> <i> <br /> <p> <blockquote>
  • Lines and paragraphs break automatically.
  • Textual smileys will be replaced with graphical ones.

পোস্ট সাজাতে বাড়তি সুবিধাদি - ফর্মেটিং অপশন।

CAPTCHA
This question is for testing whether you are a human visitor and to prevent automated spam submissions.

বন্ধুর কথা

আহসান হাবীব's picture

নিজের সম্পর্কে

তোমার সৃষ্টি তোমারে পুজিতে সেজদায় পড়িছে লুটি
রক্তের বন্যায় প্রাণ বায়ু উবে যায় দেহ হয় কুটিকুটি।।
দেহ কোথা দেহ কোথা এ যে রক্ত মাংসের পুটলি
বাঘ ভাল্লুক নয়রে হতভাগা, ভাইয়ের পাপ মেটাতে
ভাই মেরেছে ভাইকে ছড়রা গুলি।।
মানব সৃষ্টি করেছ তুমি তব ইবাদতের আশে
তব দুনিয়ায় জায়গা নাহি তার সাগরে সাগরে ভাসে।
অনিদ্রা অনাহার দিন যায় মাস যায় সাগরে চলে ফেরাফেরি
যেমন বেড়াল ঈদুর ধরিছে মারব তো জানি, খানিক খেলা করি।।
যেথায় যার জোড় বেশী সেথায় সে ধর্ম বড়
হয় মান, নয়ত দেখেছ দা ছুড়ি তলোয়ার জাহান্নামের পথ ধর।
কেউ গনিমতের মাল, কেউ রাজ্যহীনা এই কি অপরাধ
স্বামী সন্তান সমুখে ইজ্জত নেয় লুটে, লুটেরা অট্টহাসিতে উন্মাদ।
তব সৃষ্টির সেরা জীবে এই যে হানাহানি চলিবে কতকাল।
কে ধরিবে হাল হানিবে সে বান হয়ে মহাকাল।।